ইচ্ছা অনিচ্ছা বৃত্তান্ত….

ইচ্ছা করে প্রতিদিনই ব্লগে একটা করে দুর্দান্ত লেখা দেই । কিন্তু মোটামুটি গোছের কিছু একটাই দিয়ে উঠতে পারি না। ইদানিং আমার চারপাশ আমাকে যেন কতটা ব্যস্ত রাখা যায় সেই চেষ্টায় ব্যস্ত। তারপরও ব্লগে একবার ঢু মেরে যাওয়ার ইচ্ছাটা কেউই অবদমিত করতে পারেনা। আসলেই কি পারে না ? গত কিছু দিন কেন জানি না আমি আমার পিসিতে বসে যতবারই চেষ্টা করেছি আমার ব্লগে ঢুকতে , প্রতিবারই ব্যর্থ হয়েছে। কার ইচ্ছায় কে বলতে পারে ….

যা হোক গত কাল থেকে আমি আবারো ঢুকতে পারছি… এটাই যা সুখের কথা… কিন্তু দুঃখের কথা হল… সারাদিন অথবা সারা সপ্তাহ কাজ করে করে আমার মাথা এবং আঙ্গুল দুইই অবসন্ন। একেবারেই কিছু টাইপ করতে ইচ্ছা করছে না। ইচ্ছা করছে এক চৌবাচ্চা চায়ের ভেতর গড়াগড়ি করতে। কিন্তু এই জিনিস এখন পাই কোথায় ? যেহেতু নাই মামার থেকে কানামামা ভাল তাই চৌবাচ্চা ভরা চায়ের থেকে এক মগ চাই ভাল…

আহ !! প্রতি দিন সকালে উঠেই ইচ্ছা হয় আজ ছুটি নিয়ে নেই। লাথি মারি এই বুর্জোয়া ব্যবস্থায়। সারা দিন খেটে ক্লান্ত হব আমরা আর তার যত ফল ঘরে তুলবে কোথাকার কোন শালা। অন্যদিকে রাতে স্বপ্ন দেখতে দেখতে ঘুমাতে যাই… একদিন আমিও ঐরকম বুর্জোয়া হয়ে উঠেছি। আমাকে ঘিরে হাজারো কর্মযজ্ঞ। আর এই ইচ্ছার কাছেই শেষ পর্যন্ত পরাজিত হয়ে প্রতিদিনই আবার আমাকে বের হতে হয় কর্মতীর্থে।

বাইরে বের হয়েই যে ইচ্ছার ডালপালা মেলে শেষ হয়ে যায় তাও কিন্তু না। ইচ্ছা করে চোখের নিমিষে পৌছে যেতে গন্তব্যে। কখনো কখনো যে রাস্তায় একটু ঘুমিয়ে নিতে ইচ্ছাও করে না তাও কিন্তু না। তবে সর্বোচ্চ চেষ্টা করে নিজেকে আটকে রাখি সাধারণত। বাসের ভেতর কাউকে ঘুমাতে দেখলে আমার মনের ভেতর যে চিন্তাটা সবার আগে কাজ করে তা হল… আহা বেচারা, রাতে লোকটাকে কি সার্ভিসটাই না দিতে হয়েছে!! আর দ্বিতীয় চিন্তা যেটা কাজ করে সেটা বলে যদিও একটু শরম করছে … তবুও বলেই ফেলি … আহ.. কবে যে এই রকম সার্ভিস দেয়ার সুযোগ পাব ! ( আর ব্লগ তো আর আমার আব্বা হুজুর পড়ে দেখবেন না)

আব্বাহুজুরের কথা যেহেতু এসেই গেল, তার একটা ইচ্ছার কথা না বলে আর থাকতে পারছি না… তিনি প্রায় প্রতি দুই মাস পরপরই ধুম্রপান ছেড়ে দেয়ার্ ইচ্ছা পোষন করেন। তার সেই ইচ্ছার বহিপ্রকাশ দেখে আমাকে মাঝে মাঝে বলতেই হয়, এই অর্বাচিন আমাকে দেখেই শিখুন না, আমি তো সেই তিন বছর বয়েসেই সিগারেটটা ছেড়ে দিয়েছি ( তিন বছর বয়েসে আমি একবার ধুম্রপানরত অবস্থায় ধরা পড়েছিলাম !!)

এতক্ষণে আমি চায়ের ধোয়ার সাহায্যে বেশ তরতাজা হয়ে উঠলেও আপনারা নিশ্চয় বিরক্ত হতে শুরু করেছেন। আপাতত আপনাদেরকে আরো বিরক্ত করতে ইচ্ছা হচ্ছে না… (অন্য ব্লগ গুলো যে পড়তে ইচ্ছা করছে এটা বলতেও ঠিক ইচ্ছা হচ্ছে না… )

(আমার ব্লগের জন্য লিখিত। এখানে সংরক্ষণ করলাম)

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s