যাপিত জীবন

যাপিত জীবন – ৩৬

অনেকের মতো আমিও নানা ধরণের সমাবেশ নিয়ে চিন্তিত এখন। চার/পাঁচ দিন পরপর একবারের জন্য হ’লেও আমাকে বাজারে যেতে হচ্ছে। সেখানে যতটা ভীড় দেখছি সেটা চিন্তা বাড়াচ্ছেই। বাসার কাছের সুপার মলে যাচ্ছি সেখানেও খুব একটা আলাদা কিছু দেখছি না। সেখানেও অনেক মানুষ।

আমাদের দেশটাই আসলে এমন। আমাদের সব জায়গাতেই মানুষের ভীড় বেশি। সেটা শুধু রাস্তাঘাট, হাসপাতাল কিমবা বাইরের কোনো জায়গাতে তা নয়। বাড়িতেও ভীড় কি কম? আমাদের কত শতাংশ বাসাতে প্রতিটা মানুষের জন্য একটা ক’রে ঘর আছে? ধারণা করি সেটা ২০ শতাংশের বেশি নয়। আমার ধারণা সঠিক তথ্যের কাছাকাছি নাও হ’তে পারে। কিন্তু অনেক বসাতেই যে ৫/৬ ফুট দূরত্ব মেনে মানুষ বাস করারই সুযোগ নেই সেটা বাস্তবতা। ২০১৩/১৪ এর দিকে সম্ভবত ডেইলিস্টারে একটা ফিচার দেখেছিলাম, যেটাতে বলা ছিলো যে একটা ১২০ বর্গফুটের মতো ঘরে ১৩ জন গার্মেন্টসকর্মী থাকেন।

পরিবারের একজন মানুষকে যদি মাঝে মাঝে বাইরে বের হ’তেই হয় (বাজার, ওষুধ কেনা এসব কাজে) তখন তার করোনা-ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকেই। তার মাধ্যমে ছড়াতে পারে পরিবারের অন্যদের ভেতরে। কারণ সাধারণ হিসাবে সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার সুযোগই আমাদের দেশের অনেকের নেই। এই অবস্থায় শুধু সাধারণ ছুটি আর সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার পরামর্শ হয়তো পুরোপুরি কাজে দেবে না। আমাদের এটা নিয়ে আরো কিছু বিকল্প ভাবা দরকার।

জানতে পারলাম সুইডেন লকডাউন করেনি তার শহরগুলো। এমনকি রেস্তোরা, স্কুলও বন্ধ করেনি। কেউ কেউ বলছে বিলেতও শুরুতে এমনই আচরণ করেছিল। তার পরিণতি ভয়াবহ হয়েছে। সুইডেনের সামনেও সেটাই অপেক্ষা করছে। আবার হয়তো করছে না। কারণ সুইডেনের লোকজন রাস্তাতে থাকলেও সেখানে দূরত্ব মানছে। কাজের জন্য বের হচ্ছে। বিনোদনের জন্য নয়। আর সরকারী নির্দেশনা মানছে। ওদের সরকার আর সাধারণ মানুষের মধ্যে একধরণের বোঝাপড়া আছে। আমাদের এখানে সেটা যে ততটা নয় সেটাও বাস্তবতা। আবার চিকিৎসা ব্যবস্থা আর অর্থনীতিও একটা বড়সড় পার্থক্য গড়ে দেয়। লোক সংখ্যার ঘনত্ব তো বটেই। ওদের লোকসংখ্যার ঘনত্ব আমাদের থেকে অনেক অনেক কম।

আমার ভেতরে যে ইনট্যুশন কাজ করছে তা বলছে, দেশে যে ভাবে সাধারণ ছুটি চলছে তাতে এই পরিস্থিতি সামাল দেওয়া হয়তো যাবে না। আমি নিজেও তো এই দেশেরই লোক। এভাবে হয়তো কেউ ১০ দিন চলতে পারবে। কেউ হয়তো দুই মাস। কিন্তু ৪/৫ মাস চ’লতে পারবে ব’লে মনে হয় না। আমাদের আরো কিছু করা দরকার। জানি না তা কী? তবে আমরা যতটা করছি তা এই পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য যথেষ্ট নয়… বিশেষ ক’রে বাংলাদেশে… বিশেষ ক’রে আমাদের বর্তমান বাস্তবতায়…

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s