বঙ্গানুবাদ · স্থাপতিক অভিধান · স্থাপত্য

স্থাপতিক অভিধান-১ (সংগ্রহ ও অনুবাদ)

স্থাপত্য বিষয়ক অনেক বিলেতি শব্দের সরাসরি প্রতিশব্দ বাংলাতে পাইনি। বিলেতিরাও স্থাপত্যের অনেক শব্দ অন্য ভাষা থেকে জোগাড় করেছে। বাংলাতেও হয়তো জোগাড় করতে হবে। তবে বাংলাতে স্থাপত্য বিষয়ে লেখালেখির পরিমান খুবই কম। আর সে কারণে যথাযথ প্রতিশব্দ তৈরীর চেষ্টাও খুব একটা চোখে পড়েনি। বাংলাতে আমরা অনেক কিছুই একাধিক শব্দের সমন্বয়ে বুঝিয়ে দিতে পারি। হয়তো সমাসের ব্যবহার ক’রে আমরা শব্দবন্ধগুলোকে ছোট ক’রে এনে নতুন শব্দ তৈরী ক’রে নিতে পারি। এটা একটা দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা। নতুন শব্দ তৈরীর জন্য প্রয়োজন নিজ ভাষার শব্দ তৈরীর কৌশলগুলো জানা আর অবশ্য অবশ্যই কল্পনাশক্তি। কেউ যদি কোনো প্রতিশব্দ প্রস্তাব করেন আর তা যদি ব্যবহার উপযোগী আর যথাযথ হয় তবে তা জনপ্রিয় করাও দরকার। অনেক সময় ব্যবহার না করার পরিণতিতে সুন্দর আর মানানসই কোনো প্রতিশব্দও হারিয়ে যেতে পারে। আমি আমার নজরে আসা স্থাপত্য সম্পর্কিত শব্দগুলো এখানে টুকে রাখার চেষ্টা করে যাবো আশা রাখি। কিছু প্রতিশব্দ নিজে তৈরীরও চেষ্টা থাকবে। স্থাপত্য বিষয়ক অনেকগুলো বিলেতি শব্দের প্রচলিত বাংলা-শব্দও ঠিক বাংলা শব্দ নয়, হয়তো আরবি, ফার্সি বা সংস্কৃত। সেগুলোও বিদেশী শব্দই। হয়তো একটু বেশি দিন ধ’রে বাংলাতে ব্যবহার হয়ে আসছে, এই যা। সেগুলোরও বাংলাকরণ করা যায় কিনা ভাবা দরকার।

যদিও স্থাপত্য বিষয়ক শব্দের প্রাধান্য থাকবে এই সংগ্রহে, তবু নতুন কোনো পারিভাষিক শব্দ (পরিভাষার মতো ক’রে পরিশব্দ বলা যায় কি?) পেলেও টুকে রাখার চেষ্টা থাকবে।

aesthetics- নন্দনতত্ত
শিল্পকে অর্থময় এবং বোধগম্য করার তাগিদে দর্শনের যে শাখা শিল্পের স্বরূপ, সৌন্দর্য আর আগ্রহ নিয়ে কাজ করে। (ডি.কে.চিং)

apartment – মহল
এ্যাপার্টমেন্টকে মহল হিসেবে প্রথম উল্লেখ করতে দেখেছি আবদুশ শাকুরের লেখাতে। তখন মনে প’ড়েছে ঘোশেটি বেগমের থাকার জায়গাটার নাম ছিলো মতিঝিল-মহল। সেটা ঠিক এ্যাপার্টমেন্ট ছিলো কিনা জানি না। তবে এটা যে একটা উপযোগী প্রতিশব্দ তাতে কোনো সন্দেহ নেই।

arch – খিলান
বাংলাতে মুসলমান সুলতানেরা যখন বিভিন্ন ধরণের ইমারত বানানো শুরু করেন তখন এই শব্দটার বাংলাতে প্রবেশ। আমার কানে এখনো এটাকে ঠিক বাংলা শব্দের মতো লাগে না।
Model

architecture – স্থাপত্য
robust architecture – জমকালো স্থাপত্য।
লুই কান বা ফ্রাংকো গেরির অনেক কাজকে এই ধরণের স্থাপত্য হিসেবে উদাহরণ দেওয়া যায়। এই ধরণের স্থাপত্যের ফর্ম বা গড়ন বেশ আইকোনিক বা  ভাস্কর্যসম অর্থাৎ যার গড়ন সহজেই অন্য কোনো স্থাপত্য-কর্ম থেকে আলাদা ক’রে চেনা যায়।

weak architecture – অনুগ্র স্থাপত্য (কাজী খালিদ আশরাফ এই বাংলাটা করেছেন)
কেনজো কুমা তার ডিজাইনকৃত অনেকগুলো স্থাপনাকে অনুগ্র স্থাপত্যকর্ম হিসেবে বর্ণনা করেছেন। এই ধরণের স্থাপত্য চোখ বা মনের উপর বাড়তি চাপ দেয় না যেন। খুব চোখে পড়ার মতো ফর্ম বা গড়ন থাকে না বললেই চলে। পরিসরই যেখানে মূখ্য। পরিসর তৈরীতে ব্যবহৃত উপাদানগুলো প্রবলভাবে নিজের উপস্থিতি জাহির করে না। যেফ্রি বাওয়ার অনেক কাজও এই ধরণের স্থাপত্যের উদাহরণ হতে পারে। স্থপতি বশিরুল হকের ডিজাইনকৃত ছায়ানট-ভবনটিকে একটি অনুগ্র স্থাপনা হিসেবে বিবেচনা করা যায়।(রাজীব রহমান)
IMG38428
ছায়নট ভবন-বশিরুল হক
modern architecture – আধুনিক স্থাপত্য; আধুনিকতাবাদি স্থাপত্য
classical architecture – ধ্রুপদি স্থাপত্য

architectonics
কোন শিল্পকর্মের কাঠামো এবং তার মূল-ধারণার সমন্বয় প্রক্রিয়া/ the unifying structure or concept of an artistic work.

archivolt
a decorative molding or band on the face of an arch following the curve of the intrados.

art- শিল্প
চমৎকার, আকর্ষনীয় বা অসাধারণকে গ’ড়ে তোলার জন্য দক্ষতা, নৈপুন্য আর চিন্তাশক্তির সচেতন ব্যবহার। (ডি.কে.চিং)

autonomy of architecture – স্থাপত্যের স্বাতন্ত্র্য (কাজী খালিদ আশরাফ)

basement – পাতালঘর
মাটির নিচের জগতকে পাতালপুরি হিসেবে অনেক আগে থেকেই ব্যবহার করা হয়ে আসছে। সেটাকে ব্যবহার ক’রে এই পাতালঘর শব্দটার তৈরী করা হয়েছে। মুঘলরা বেইজমেন্টকে ব’লতো জামিনদোজ। এটাও একটা বিকল্প হ’তে পারে।

beauty – সৌন্দর্য
কোনো ব্যক্তি বা বস্তুর এমন কোনো গুণ যা চিত্তকে আনন্দ দেয়, সত্তা আর চেতনাকে তৃপ্ত করে, তা সে রং বা গড়নের ছন্দ থেকেই আসুক বা নৈপুণ্যের উৎকর্ষতা, সততা, মৌলিক বা অন্য কোনো অপরিচিত কিছু থেকে আসুক। (ডি.কে.চিং) ফলে সৌন্দর্য মূলত একটি নির্বাচিত বিষয়। কোনো একটি গড়ন বা রংকে একজন ব্যক্তি সুন্দর ব’লে নির্বাচন করলেও আর একজন নাও করতে পারে। সৌন্দর্য নির্বাচনের ধরণে সমাজের প্রচলিত ঐতিহ্যও নানা ভাবে প্রভাব বিস্তার করে।

bond – গাথুনি
ইটের যে কোন ধরণের বিন্যাস । পাশাপাশি এবং উপর-নিচে ইট সাজাতে সাধারণত একটা প্রকরণ অনুসরণ করা হয়। তার ফলে দেয়াল বেশ খানিকটা শক্ত বা দীর্ঘস্থায়ী একটা রূপ পায় এবং দেখতেও সুন্দর লাগে। ইটের এই বিন্যাসের বেশ কিছু ধরণ সহজেই আলাদা করা যায়। যেমন রানিং-বন্ড, ফ্লেমিস-বন্ড, ইংলিশ-বন্ড প্রভৃতি।

brick – ইট
সাধারণ ভাবে কাদামাটি দিয়ে তৈরী দেয়াল গাঁথার উপাদান। নরম কাদামাটিকে ছাচে ঢেলে একে একধরণের আয়াতাকার প্রিজমের রূপ দিয়ে তাকে রোদে শুকিয়ে অতঃপর আগুনে পুড়িয়ে শক্ত করা হয়। পোড়ামাটির এই ইট কাদামাটির তুলনায় অনেক বেশি স্থায়ী। আবার পাথর কেটে তাকে আয়াতার প্রিজমের আকার দিয়েও ইট তৈরী করা যায়। সম্প্রতি সিমেন্ট ব্যবহার ক’রে এক ধরণের ইট তৈরী করা হচ্ছে। এই ইটের আকারও প্রচলিত পোড়ামাটির ইটের সমান, অর্থাৎ ৯.৭৫”X৪.৫”X২.৭৫5″ । পাথর কম পাওয়া যায় এমন স্থানে গ’ড়ে ওঠা প্রায় সব সভ্যতাতেই পোড়ামাটির ইটের ব্যবহার হয়েছে। ইট পোড়ানোর ব্যাপারটা পরিবেশের জন্য বেশ ক্ষতির কারণ হয়ে দাড়ায়। সিমেন্ট-ব্রিক বা সিমেন্ট ব্যবহার ক’রে তৈরী করা ইট অধিকতর পরিবেশ বান্ধব হিসেবে মনে করা হচ্ছে। (সিমেন্ট-ব্রিকের একটা যুতসই বাংলা শব্দ তৈরী করা দরকার)

বরেন্দ্রভূমি
সাধারণভাবে উত্তরবঙ্গের লাল-মাটির এলাকাসমূহ। এই এলাকা আবার স্থানীয় বিবেচনায় দুইভাগে ভাগ করা। পুনর্রভবা আর করোতোয়ার মধ্যবর্তী অঞ্চলকে স্থানীয় মানুষেরা খিয়ার ব’লে উল্লেখ করেন। বগুড়া আর গায়বান্ধার বেশ খানিকটা এলাকা এর অন্তর্ভুক্ত। অন্যদিকে মহানন্দা এবং আত্রাই নদীর মধ্যবর্তী লাল-মাটির এলাকা গৌড় নামে পরিচিত। মোটামুটি রাজশাহী, মালদহ আর মুর্শিদাবাদের বেশ কিছু এলাকা নিয়ে এটা গঠিত। হিন্দু-পুরানে বরেন্দ্র-এলাকাকে ঈন্দ্রের বর বা আশির্বাদ-পাওয়া এলাকা ব’লে দাবি করা হয়। লাল মাটির একটা এলাকা যেখানে ফসল ফলে কম তা কিভাবে দেবতার আশির্বাদপুষ্ট হ’তে পারে তা মানতে পারতাম না। পরে জানতে পারলাম উত্তর-বঙ্গে বিভিন্ন সময়ে যত রাজত্ব এবং তাদের রাজধানী গ’ড়ে উঠেছে তার প্রায় সবই এই লাল মাটির এলাকাতে তৈরী হয়েছে। সেটাই অর্থনৈতিক বিবেচনায় যুক্তিযুক্ত। চাষবাস হবে নদীর তীরবর্তী প্লাবন-ভূমিতে আর তুলনামূলক-স্থায়ী ভবন গ’ড়ে উঠবে কম-উৎপাদনক্ষম লাল মাটিতে। আর দেবতারা তো রাজাদেরকেই অশির্বাদ করবেন। সাধারণের সহায় তো নদী।

camber piece
a board used as centering for a flat arch slightly crowned to allow for settling of the arch. also called camber slip.

cartoon – কার্টুন
সাধারণত ফিয়াস্ক, মোজাইক আর ট্যাপেস্ট্রি গড়ার জন্য তৈরীকৃত পূর্ণ-স্কেলের কোনো ড্রয়িং/নকশা।

centering
a temporary framework for supporting a masonry arch or vault during construction until the work can support itself.

chrysanthemum – চন্দ্রমল্লিকা (র.ঠা.)

circle – বৃত্ত
circular – বৃত্তাকার

city – নগর; নগরী
যেখানে বিপুল সংখ্যক মানুষের বসতি গ’ড়ে ওঠে। নগরের মানুষ সাধারণভাবে প্রাথমিক পণ্যের উৎপাদক নয়, তারা মূলত প্রাথমিক পণ্যের ভোক্তা আর সেসবের প্রক্রিয়াকরণ কাজে জড়িত। শহরও একই ধরণের উদ্দেশ্যে গ’ড়ে ওঠা মানব-বসতি। তবে শহর আর নগরের ভেতরে পার্থক্য ক’রতে গেলে প্রথমেই বলা হয় তুলনামূলক ভাবে শহরের আকার ছোট আর নগরের আকার বড়। এটা নির্ভর করে স্থানভেদে,অঞ্চলভেদে, দেশভেদে। নগর পরিকল্পনাবিদেরা শহর আর নগরকে আলাদা করার জন্য স্থায়ী-বসতির সাংখ্যার ব্যাপারটা টেনে আনেন। ধ’রে নেয়া হয় শহরে স্থায়ী-বসতির সংখ্যা তার মোট জনসংখ্যার সিংহভাগ। আর নগরের বেশিরভাগ মানুষ নগরের স্থায়ী বাসিন্দা নয়। এই সংঙ্গার একটা জটিলতা হ’লো, নতুন গ’ড়ে ওঠা নগরে হয়তো বহিরাগত মানুষের সংখ্যা বেশি থাকে; কিন্তু সময় গড়াতে গড়াতে অনেক মানুষ নগরে স্থায়ী হ’তে শুরু করে। সেখানে নিজের জমি কিনে ঘর-বাড়ি বা মহল (এ্যাপার্টমেন্ট) তৈরী করে নেয়। তাতে নগরী যত পুরাতন হ’তে থাকে তত কি শহরের চরিত্র নিতে থাকবে? যদিও বাস্তবে সেটা হয় কমই। তুলনামূলক বিচারে নগরী শহরের তুলনায় দ্রুত বর্ধনশীলও। অফিস, আদালত, হাসপাতাল, বিশ্ববিদ্যালয়, কারখানা আর বিপনিবিতানের মতো অনেক সুবিধাও নগরে বেশি পরিমাণে গ’ড়ে ওঠে। ফলে সে সবসময়ই নতুন মানুষকে আকর্ষণ করতে থাকে। বড়-শহর বা নগরীতে তাই বহিরাগত আর অস্থায়ী মানুষের সংখ্যা বাস্তব কারণে বেশিই হয়।

city planning – নগর পরিকল্পনা
অনেকটা আরবান ডিজাইনের প্রতিশব্দ বলা যায়। তবে সিটি-প্ল্যানিং অনেক বেশি অর্থনৈতিক বিবেচনা ধারণ করে আরবান ডিজাইনের তুলনায়।

comfort – আরাম বা স্বস্তি
thermal comfort – তাপীয় আরাম

common brick – বাংলা ইট 
ভবন তৈরীতে বহুল-ব্যবহৃত দেশীয় একক-উপকরণ। প্রচলিত ইট-ভাটিতে, যেখানে আগুনের তাপ সবসময় নিয়ন্ত্রণে থাকে না, পোড়ানো হয় ব’লে এই ইটের মাপ একটু কম-বেশি হয়ে থাকে।

conception – ধারণাগত নকশা
বাস্তবে নেই এমন কোনো কিছুর ধারণাগত নকশা বা চিত্র। (ডি.কে.চিং)

critical thinking – তুরীয় চিন্তা

crown – খিলানের সর্বোচ্চ বিন্দু
খিলান, ভল্ট বা এই ধরণের যে কোনো উত্তল কাঠামোর সর্বোচ্চ বিন্দু।

design – ডিজাইন ; নকশা ; নকশা-প্রণয়ন
বাংলাতে সাধারণভাবে অনেকেই নকশা-প্রণয়নকে বুঝিয়ে থাকেন। তবে নকশা-প্রণয়ন শব্দবন্ধটা ডিজাইনের সবটা আমেজ ধরতে পারে না সম্ভবত। সেজন্য প্রতিশব্দ হিসেবে ডিজাইন শব্দটাই ব্যবহার ক’রে থাকেন বেশিরভাগ মানুষ। আমার নিজেরও ডিজাইন ব্যবহারের প্রতি পক্ষপাত আছে যথাযত প্রতিশব্দের বিকল্প না থাকায়।

disclaimer –
১। দায়বর্জনবিবৃতি; ২। দায়-অস্বীকৃতি; ৩। লিখিত ডিসক্লেইমারকে দায়নাটীকা ৪। উচ্চারিত ডিসক্লেইমারকে দায়নাবাণী
প্রস্তাবনাগুলো মন-মাঝি এবং হিমুর।

doctor – চিকিৎসক ; বদ্য/বদ্যি
রোগ-শোকের উপসম করে যারা তাদেরকে বদ্য/বদ্যি বলাটা বেশ পুরানো। চিকিৎসক শব্দটা ভালো হ’লেও এটাকে অন্য কিছুর সাথে জুড়ে দিয়ে ব্যবহার করা কঠিন। যেন কার্ডিওলজিস্ট কে হৃদরোগের চিকিৎসক হিসেবে চিনে নেওয়া যায়। কিন্তু একটা শব্দে সেটা বোঝানো কঠিন। বদ্য/বদ্যি শব্দটা ছোট হওয়ায় এটা হৃদরোগবদ্যি ধরণের শব্দ তৈরীর জন্য বেশি সহায়ক সম্ভবত। একই ভাবে অর্থপেডিস্ট থেকে অস্থিরোগবদ্যি শব্দ তৈরী ক’রে নেওয়া যায়। নিউরোলজিস্ট – স্নায়ুরোগবদ্যি। এ্যানাটমিস্ট – শরীরবদ্যি। ডেন্টিস্ট – দন্তবদ্যি। এখন হৃদরোগবদ্যি শব্দটাকে আরো ছোট ক’রে দন্তবদ্যির মতো হৃদবদ্যি বলা যায় কিনা ভেবে দেখা যেতে পারে।

door – দরজা ; দুয়ার ; ফটক;

door frame – দোর- কবাট / কপাট
যে কোনো ধরণের পাল্লাকে কপাট হিসেবে ব্যবহার করা যায়। জানালা কিমবা দরজার। দরজার পাল্লার ক্ষেত্রে দোরকপাট শুনতে খারাপ লাগছে না। তবে জানালার পাল্লা বা উইন্ডো-ফ্রেমের জন্য জানলা-কপাট ঠিক শ্রুতিমধুর হয় না।

draft – ড্রাফ্ট ; খসড়া নকশা
কোনো ডিজাইন বা পরিলেখের প্রাথমিক খসড়া ড্রয়িং বা নকশা, যা সাধারণত মতামত নেওয়ার বা মূল্যায়নের উদ্দেশ্য নিয়ে আঁকা হয়।

drawing – নকশা

elevation – উন্নতি
north elevation – উত্তর দিকের উন্নতি

engineer – প্রকৌশলী

engineering – প্রকৌশল

environmental design – পরিবেশ-পরিকল্পনা / পরিবেশিক ডিজাইন
স্থাপত্য, প্রকৌশল, নির্মাণ, ভূমিতলের(ল্যান্ডস্কেপ) স্থাপত্য, আরবান ডিজাইন আর নগর পরিকল্পনার সমন্বয়ে /মাধ্যমে দৃশ্যমান পরিবেশের সমন্বয় প্রক্রিয়া। (ডি.কে.চিং)

indoor – অভ্যন্তর; ভিতর; অন্দরি (হিমু)
[সচলায়তনের একটা লেখাতে (নগরী ঢাকা ৩) ইনডোর-গেইমসকে কি বলা যায় তাই নিয়ে কথা হচ্ছিলো। সেখানে হিমু প্রস্তাব করেছেন ইনডোরকে অন্দরি আর আউটডোরকে বাহিরি বলা যায় কিনা। অন্দরি-খেলা, বাহিরি-খেলা। অন্দরি-পরিসর বা শুধুই অন্দরি ও বলা যায়। শব্দগুলো শুনতেও ভালো মনে হয়েছে। আবার নানা ধরণের শব্দের আগেও যোগ ক’রে বলা যায়।]

function – কর্মসূচি

interior design – অভ্যন্তর-ডিজাইন; অন্তঃপরিসরের ডিজাইন
interior space – অন্তঃপুর; অন্তঃপরিসর; অভ্যন্তর

expressionism – অভিব্যক্তিবাদ

extrados –
খিলানের বাইরের দিকের বাঁকা উপরিতল।

facing brick – ফেসিং ইট 
সুনির্বাচিত কাদামাটি থেকে সুনির্দিষ্ট মাপে তৈরী ইট যা সাধারণত দেয়ালের বাইরের দিকে লাগানো হয় (তবে সৌন্দর্যের জন্য দেয়ালের ভেতরেও লাগানো যেতে পারে)। এই ধরণের ইটে পছন্দ মতো রং বা টেক্সচার দেয়া যায়। তুলনামূলকভাবে এই ইটের পানি শোষন-ক্ষমতা কম থাকে।

firmness – দৃঢ়তা

floorমেঝে

geometry – জ্যামিতি

garage – বাহন-বিরাম (আবু এইচ ইমামু্দ্দিন)

habitat – বাস্তু

Harbour master (মার্কিনিরা অবশ্য harbor লেখে)
বন্দরপাল। (হিমুকে প্রথম ব্যবহার করতে দেখেছি)

haunch
খিলানের সর্বোচ্চ বিন্দু থেকে impost পর্যন্ত উভয় দিকে বক্রাকারে নেমে যাওয়া অংশ।

highlighter, marker – রাঙুনি
ব্লাগার হিমুর লেখাতে পেয়েছি প্রথম। রাঙুনি শুনতে ভালো লেগেছে। যুতসইও। তবে হাইলাইট করাকে ঠিক রাঙানো হিসেবে ব্যবহার করা যাবে কিনা নিশ্চিত নই।

hyperbolaঅধিবৃত্ত
hyperbola-3

iconic – ভাস্কর্যসম

impost –
কোনো স্থাপনার যে সর্বোচ্চ স্তর থেকে খিলানের নির্মাণ শুরু হয়।

impressionism – প্রকাশবাদ

industryকারখানা
ইন্ডাস্ট্রিকে শিল্প না ব’লে কারখানা বলার পক্ষে আমি। শিল্প শব্দটা শুধু আর্টের জন্য থাকলেই ভালো। কটেজ-ইন্ডাস্ট্রিকে কারু-শিল্প হয়তো বলা যায়। হেভি ইন্ডাস্ট্রি – ভারী কারখানা।

interlock  – আন্তঃসংযোগ
স্থাপত্যে বিভিন্ন ধরণের mass বিভিন্নভাবে সংযুক্ত হতে পারে। আন্তঃসংযোগ বা ইন্টারলক একটা বহুল-ব্যবহৃত মাধ্যম। (আন্তঃসংযোগ একটা প্রস্তাবনা। আমার মনে হয় আরো ভাল বাংলা করা যাবে এই শব্দটার)

intrados –
খিলানের ভেতরের দিকের বাঁকা তল।

jellyfishছাতাঝুরি
অনেকে শাপলাপাতা মাছ বলে। হিমু ছাতাঝুরি বা কাঁপনছাতি করার প্রস্তাব দিয়েছেন। আমার ছাতাঝুরি নামটা ভালো লেগেছে।

keystoneপাথরচাবি ; খিলানের মধ্যম ইট/পাথর
খিলান বা আর্চের সর্বোচ্চ বিন্দুতে যে ইট বা পাথরের এককটি বসানো হয়। (আরো ভাল বাংলা খুঁজতে হবে)

kiln – ইটভাটি
যার ভেতরে রোদে শুকানো ইট বিশেষ বিন্যাসে সাজিয়ে আগুনে পোড়ানো হয় যার ফলে ইটে বাড়তি স্থায়িত্ব আসে।

lag
a crosspiece connecting the ribs in a centering. Also called bolster.

landscape architecture – ভূমিতলের স্থাপত্য

lensদৃক
ওয়াইড অ্যাঙ্গল লেন্স – আয়তদৃক; জুমলেন্স – দূরদৃক; ফিশাই লেন্স – মীনদৃক, ম্যাক্রোলেন্স – অণুদৃক (এগুলো হিমুর প্রস্তাবনা); বাইনোকুলার – দ্বিদৃক

leverচাড়ুনি
একটি সরল যন্ত্র। চাড় দিয়ে কোনো ভারি বস্তু তুলতে বা সরাতে ব্যবহৃত হয়।

lime – লাইম
চুন, শামুক ঝিনুকের খোল বা চুনাপাথর (লাইম-স্টোন) কে উচ্চতাপে গলিয়ে এবং পরবর্তীতে তাকে শুকিয়ে তৈরী করা শক্ত উপাদান যা শাদা বা খানিকটা ধূসর রঙের হয়। লাইমে কোনো গন্ধ থাকে না। ক্যালসিয়াম অক্সাইড, কস্টিক-লাইম বা কুইক-লাইম নামেও পরিচিত এটা।

line – রেখা ; লাইন
straight line – সরলরেখা , curve line – বক্ররেখা। (রেখা শব্দটা স্থপতিদের কাছে জনপ্রিয় হবে কিনা তা নিয়ে আমার সন্দেহ আছে। এরা সবাই লাইন বলতেই অভ্যস্ত বেশি। জয়নুল আবেদিনের একটা সাক্ষাৎকারে দেখেছি তিনিও লাইন শব্দটা ব্যবহার করছেন। এত দিনের ব্যবহারে লাইন শব্দটাকে বিদেশী শব্দ হিসেবে বাংলাতে অন্তর্ভুক্ত ক’রে নেওয়া যায়। তবে সমস্যা হ’লো straight line কে সরল-লাইন বা curve line কে বক্রলাইন বলাটা ঠিক শ্রুতিমধুর হয় না।)
dotted line, broken – ভাঙাভাঙা রেখা

mannerism – ধরণবাদ

masonry arch – ইটের খিলান

modernism – আধুনিকতাবাদ
স্থাপত্যের আধুনিকতার শুরু ধরা হয় লি কর্বুজিয়েরের ‘লা রচি জেনিরেট’ বিল্ডিঙের নির্মাণ থেকে। এর কিছু পরে ‘ভার্সিউন আর্কিটেকচার’ শিরোনামে ফরাসি ভাষায় যে বইটা লিখেছিলেন সেটাতে আধুনিক স্থাপত্যের বৈশিষ্ট্য আর আকাঙ্ক্ষাকে বর্ণনা করেছিলেন। মোটামুটি ১৯২৫ এর পর থেকেই আধুনিক স্থাপত্যের জনপ্রিয়তা ছড়িয়ে পড়তে থাকে সারা পৃথিবীতে। আধুনিক স্থাপত্যের প্রতিষ্ঠা আর প্রসারে ওয়ালটার গ্রোপিয়াসের গ’ড়ে তোলা ‘বাউহাস’ স্কুলের অবদান  প্রচুর। Edmund Husserl আধুনিকতাকে ‘পৃথিবীর য়ুরোপিয়োকরণ’ (europianization of the planet) ব’লে বর্ণনা করেছেন।

mortar – মসলা; মর্টার
লাইম অথবা সিমেন্টের সাথে বালি আর পানির মিশ্রণে তৈরী থকথকে (প্লাস্টিক) উপাদান যা গাথুনি করা দেয়ালের ইটগুলোকে সংযুক্ত করার জন্য ব্যবহার করা হয়। বাংলাদেশের রাজমিস্ত্রী বা নির্মাণকর্মীরা সাধারণত একে মসলা ব’লে থাকে। মেঝেতে টালি লাগানোর জন্যও এটা ব্যবহার করা হয়।
সিমেন্টের মসলা : পোর্টল্যান্ড সিমেন্ট, বালি আর পানি মিশিয়ে তৈরী মসলা।
সিমেন্ট-লাইম মসলা : সিমেন্টের মসলার সাথে লাইম যুক্ত ক’রে তৈরী মসলা। লাইম যোগ করার কারণে মসলার থকথকে বৈশিষ্ট্য বা প্লাস্টিসিটি বেড়ে যায়, সেই সাথে পানি-রোধী ক্ষমতাও বাড়ে।
ইপোক্সি মসলা – epoxy mortar : যে মর্টার বা মসলা ইপোক্সি রেইজিন যুক্ত ক’রে তৈরী করা হয়। ইপোক্সি রেইজিন এক ধরণের ক্যাটালিস্ট বা প্রভাবক এবং খুব ভালো মানের আঠা বা সামগ্রিক (aggregate)।

narrative
a spoken or written account of connected event; a story;
ধারাবিবরণী; আখ্যান। city narrative – শহরের আখ্যান; শহরের ধারাবিবরণী। urban narrative – শহরে আখ্যান; নাগরিক আখ্যান।

nuanceপ্রকাশসূক্ষ্মতা
(a subtle difference in or shade of meaning, expression, or sound.)

order  – ক্রমবিন্যাস

outdoor space – বহি-পরিসর; বাহিরি পরিসর
outdoor games – বাহিরি ক্রিড়া; বাহিরি খেলা

parabolaঅধিবৃত্ত
Parabola-2

parking – বাহনবিরাম ; পার্কিং
বাহনবিরাম প্রতিশব্দটার ব্যবহার প্রথম দেখেছি আবু এইচ ইমামুদ্দিনের একটা ড্রয়িং বা নকশাতে। যদিও পার্কিং শব্দটার ব্যবহার বাংলাতে বেশ প্রচলিত, তবুও বাহনবিরাম একটা ভাল বিকল্প হ’তে পারে।

perspective – পরিপ্রেক্ষিত ; পার্সপেকটিভ

plan – পরিলেখ ;
master plan – সামগ্রিক পরিলেখ ; site plan – সাইট ব’লতে সাধারণত বোঝানো যে নির্দিষ্ট জায়গাটাতে কোনো প্রকল্প নির্মাণ করা হবে। স্থল, স্থান বা জায়গা শব্দগুলো দিয়ে সাইট শব্দটিকে যথাযত ভাবে প্রকাশ করা যায় না। সাইট প্লান বলতে প্রকল্প-স্থানের পরিলেখ বোঝানো হয়। আরো কার্যকর শব্দ-বন্ধ দরকার এটার জন্য।
floor plan – মেঝের পরিলেখ ;
roof plan – ছাদের পরিলেখ ;
site plan – সাইট বা জায়গার পরিলেখ ;

plain –  তল; সমতল

plaster – পলস্তরা; আস্তর; প্লাস্টার
জিপসাম অথবা লাইম অথবা সিমেন্ট, পানি আর বালির মিশ্রণে তৈরী শক্ত জমাট পদার্থ যা উপাদানগুলোর মিশ্রণের সময় থকথকে (প্লাস্টিক) অবস্থায় থাকে। কখনো কখনো মিশ্রণের সাথে চুল বা অন্য কোনো আঁশ জাতীয় পদার্থ যোগ করা হয়। উপাদানগুলো নির্দিষ্ট পারিমাণে মিশিয়ে থকথকে অবস্থায় এনে তা দেয়াল বা সিলিঙে (ছাদের নিচের দিক) লাগানো হয়, পরবর্তীতে যা শুকিয়ে গেলে শক্ত আকার ধারণ করে।

plazaচওক
অভিধান মতে চওক হ’লেও এই শব্দটার ব্যবহার চোখে পড়েনি কখনো। সাধারণত শহরের খোলা/উন্মুক্ত কোনো সার্বজনীন পরিসরকে বোঝায়।  ব্লগার ষষ্ঠ পান্ডব বলছেন পুরনো বাংলা লেখাতে প্লাজা অর্থে ‘চবুতরা‘ শব্দের ব্যবহার ছিলো।

police – কোটাল; কোতোয়াল; ঠোলা
মুগল আমলে প্রধান দূর্গ-রক্ষককে কোতোয়াল বলা হ’তো। (কোর্ট – দূর্গ , পাল – রক্ষক ; কোর্টপাল থেকে কোতোয়াল) নগর রক্ষক বা প্রহরীকে কোটাল বলা হ’তো বেশ আগে থেকেই। ঠোলা শব্দটা তুলনামূলকভাবে নতুন সংযোজন।

public space – সার্বজনীন পরিসর
উদাহরণ হিসেবে বলা যায় রেল-স্টেশন একটি সার্বজনীন ভবন। এই ভবনের যেসব স্থানে সবার যাতায়াতের সুযোগ আছে যেমন লবি-এলাকা বা টিকেট-কাউন্টার তা একটি সার্বজনীন পরিসর। অথচ স্টেশন-মাস্টারের কমরা সার্বজনীন পরিসর নয়।

public place – সার্বজনীন স্থান
যে স্থান সবার জন্য উন্মুক্ত। যেমন শহরের রাস্তা, বাজার, অফিস-আদালত, বিদ্যালয়, বিভিন্ন ধরণের বন্দর আর টার্মিনাল ইত্যাদি।

rendering – রেন্ডারিং
উপস্থাপনের জন্য তৈরীকৃত বিশেষ ধরণের ড্রয়িং, সাধারণত কোনো ভবন বা অন্তঃপরিসরের পরিপ্রেক্ষিত (perspective) দৃশ্য। এই ধরণের ড্রয়িঙে শৈল্পিকভাবে দেয়াল বা অন্য উপকরণগুলোর ম্যাটেরিয়াল, তার গায়ে পড়া আলো বা তার ছায়াও আঁকা থাকে। ইদানিং রেন্ডারিং শব্দটা কম্পিউটার ব্যবহার ক’রে তৈরীকৃত প্রায়-বাস্তবসম্মত ছবির ক্ষেত্রেও ব্যবহার করা হচ্ছে। বিভিন্ন ধরণের তৃ-মাত্রিক সফ্টওয়্যারে প্রথমে কোনো বস্তু বা ভবনের মডেল তৈরী ক’রে পরে তাকে রেন্ডার ক’রে উপস্থাপন-উপযোগী ছবি তৈরী করা হয়।

roof – ছাদ

science – বিজ্ঞান

scale – স্কেল ; নকশার অনুপাত; অনুপাত
সাধারণ অর্থে বাংলাভাষায় স্কেল ব’লতে পরিমাপ বা পাল্লা বোঝায়। তবে স্থাপত্যে scale ব’লতে নকশার অনুপাতকে বোঝানো হয়। নকশাতে ১:১০০ স্কেল লেখা থাকলে বুঝতে হবে নকশাটিতে উল্লেখিত প্রস্তাবিত/বাস্তবিক বস্তুটি ১০০ ফিট লম্বা হ’লে নকশাতে তার আকার ১ ফিট।
ড্রয়িঙে অনেক সময় রৈখিক-স্কেল (graphic scale)ও ব্যবহার করা হয়। যেটা এক ধরণের বার-ড্রয়িং যেখানে নির্দিষ্ট পরিমাণ দূরত্বের ব্যাপারটা ড্রয়িঙের মাধ্যমে উল্লেখ করা হয়।

sculpture – ভাস্কর্য
sculptural – ভাস্কর্যবৎ ; ভাস্কর্যসম ; ভাস্কর্য-সম্পর্কিত

section – ছেদচিত্র , ছেদ
ORTHO_PLAN
cross section : ৯০ ডিগ্রী কোণে কোনো বস্তুর দ্বি-খন্ডিত বা ছেদকৃত অংশের ড্রয়িং বা নকশা।
longitudinal section : কোনো বস্তুর যে দিকটা সবচেয়ে লম্বা সেই বরাবর ছেদকৃত অংশের ড্রয়িং বা নকশা।

shade – শেড ; অবহেলিত ছায়া
কোনো বস্তুর যে দিকটাতে আলো না পড়ার কারণে যে ছায়া পড়ে।

shadow – ছায়া
কোনো একটি অস্বচ্ছ বস্তুতে আলো পড়ার পর তার বিপরীত কোনো তলে যে স্পষ্ট অবয়বের ছায়া পড়ে।

shareভাগ

sketch – খসড়া অঙ্কন ; স্কেচ
ডিটেইল বা খুঁটিনাটি ছাড়া কোনো বস্তু, বিষয় বা ধারণাকে বোঝানোর জন্য দ্রুত আর সহজে যা আঁকা হয়। প্রাথমিক ধারণা বা সমীক্ষা (স্টাডি) তৈরীতে ব্যবহৃত নকশা বা অঙ্কন।

skew arch
an archway having sides or jambs not at right angles with the face of its abutments.
লুই কান তার অনেকগুলো প্রজেক্টে এই ধরণের আর্চ বা খিলান ব্যবহার করেছেন। নিচের ছবিটি সোহরাওয়ার্দি হাসপাতালের। নিচের তলার খিলানটি স্কিউ-খিলানের একটি ভালো উদাহরণ।
8ea2455ea00556c7a1f8432f0a87f45d

স্কিউ আর্চ- সোহরাওয়ার্দি হাসপাতাল, ঢাকা- লুই কান ডিজাইনকৃত

Snapshot –
হঠাৎচিত্র (হিমু) ; ক্ষণচিত্র (স্পর্শ)
ইদানিংকালের বহুল ব্যবহৃত শব্দ। দুটোই হ’তে পারে। তবে যে কোনো একটা জনপ্রিয় হ’লে সাধারণ বিবেচনায় ভালো হবে। দেখা যাক এই দুটো থেকেই একটা জনপ্রিয় হয় না আরো নতুন কিছু আসে।

spaceপরিসর; জায়গা
interior space – অন্তঃপরিসর; outdoor space – বহি-পরিসর ; semi-outdoor space – আধা-অন্তঃপরিসর; আঙ্গণিক পরিসর (হিমু) intermediate space – অন্তরাল। অন্তরালের আদলে অন্দরাল, বাহিরাল এবং অঙ্গণাল এর প্রস্তাবও করেছেন হিমু।

space planning – পরিসর পরিকল্পনা

spring
ভিত্তির যে বিন্দু থেকে খিলান, ভল্ট বা গম্বুজের শুরু।

spandrel /spandril
the triangular-shaped, sometimes ornamented area between the extrados of two adjoining arches or between the left or right extrados of an arch and the rectangular framework surrounding it.

springer
খিলানের নিচের দিকের প্রথম voussoir /the first voussoir resting on the impost of an arch.

Stem cell – নিধিকোষ

study – সমীক্ষা
শিক্ষামূলক অনুশীলের জন্য তৈরীকৃত নকশা বা ড্রয়িং। কোনো জায়গা বা সাইট দেখার পর তার বৈশিষ্ট্যগুলো উল্লেখ ক’রে নথিভুক্ত করার (ডক্যুমেন্টেশন) উদ্দেশ্যে তৈরীকৃত ড্রয়িং।

sustainable – টেকসই; ভবিষ্যসহ; চলনসই
(বাংলাতে সাস্টেইনেবলের প্রতিশব্দ হিসেবে টেকসই একরকম প্রতিষ্ঠিত হ’য়েই গিয়েছে। তবে এটা ডিউরেবলের প্রতিশব্দ। বিলেতি-শব্দ সাস্টেইনেবল শুধুমাত্র টিকে থাকার ভাবনা ধারণ করে না। হিমু প্রস্তাব করেছেন ভবিষ্যসহ শব্দটা। আমি প্রস্তাব করলাম চলনসই। দুটো শব্দই অর্থানুযায়ী ব্যবহার করা যায় ব’লে মনে করছি। সাস্টেইনেবল পরিকল্পনা চলনসই আর ভবিষ্যসহ দুইই হওয়া প্রয়োজন।)

taste – রুচি
কোনো ব্যক্তি বিশেষ বা সমাজের দৃষ্টিতে যথাযত বা সুন্দর কিছু নির্বাচনের সূক্ষ্ন বেবেচনা, বিচক্ষণতা বা মূল্যবোধ। (ডি.কে.চিং)

technics – কলাকৌশল
যে কোন কিছুর প্রয়োগ কৌশল।

tectonics – টেকটোনিক্স
নির্মাণ কাজে আকার তৈরী, অলংকরণ করা এবং উপকরণ সংগ্রহের পদ্ধতি। (ডি.কে.চিং)

technology – প্রযুক্তি
ব্যবহারিক বিজ্ঞান : জ্ঞানের যে শাখা প্রকৌশল পদ্ধতি আর উপাদানের নির্মাণ এবং ব্যবহারের নির্দেশ ক’রে তার সাথে জীবন-ব্যবস্থা, সমাজ এবং পরিবেশের সম্পর্ক নিয়ে কাজ করে।

town – শহর;
জন-মানুষের বসতির একটা ধরণকে শহর বলা হয়। মনে করা হয় শহরের আকার গ্রামের থেকে বড় আর নগরের থেকে ছোট। তবে গ্রাম থেকে শহরের একটা বিশেষ পার্থক্য হ’লো শহর সাধারণত প্রাথমিক পণ্য যেমন ধান-চাল, সবজি, তুলা এইসব উৎপাদন করে না। শহর অর্থে এমন একটা বসতিকে বোঝানো হয় যেখানে তুলনামূলকভাবে বেশ বড় সংখ্যক মানুষ গ্রামে উৎপাদিত প্রাথমিক পণ্যকে মূলত ভোগ (কনজিউম) করে, সে সরাসরিও হ’তে পারে আবার প্রক্রিয়াকরণের মাধ্যমেও হ’তে পারে।

urban design – নগর পরিকল্পনা / আরবান ডিজাইন
স্থাপত্য এবং নগর পরিকল্পনার যে বিষয়গুলো নগরের অবকাঠামো ও পরিসর নিয়ে কাজ করে। (ডি.কে.চিং)

vault –
এক বা একাধিক খিলানকে বর্ধিত করে নির্মিত ছাদ বিশেষ। (এখনো পর্যন্ত ভল্টের কোনো বাংলা পরিভাষা পাইনি)
Impression

voussoir
any of the wedge-shaped units in a masonry arch or volt, having side cuts converging at one of the arch centers.

wall – দেয়াল
load bearing wall – যে দেয়াল ইমারতের কাঠামো গঠন করে।
masonry wall – ইটের তৈরী দেয়াল। এই ধরণের দেয়াল কিছু সীমা পর্যন্ত লোড-বেয়ারিং এবং পার্টশন দুই ধরণেরই হ’তে পারে।
partition wall – একাধিক কোনো পরিসরকে আলাদা করার জন্য যে দেয়াল তৈরী করা হয়। ইদানিং কালে চাহিদা অনুযায়ী প্রায় সব ধরণের নির্মাণ উপকরণ দিয়েই এই ধরণের দেয়াল তৈরী করা যায়।
shear wall – কনক্রিটের যে দেয়াল বিল্ডিঙের লোড বা ওজন ধারণ করে। এটা অনেকটা কলামের মতই কাজ করে ইমারতে। যখন কোনো কলামের লম্বা দিক তার চওড়া দিকের অনুপাতে বেশ বেশি হ’য়ে যায় তখন তাকে শেয়াল-ওয়াল বলা হয়। এই ধরণের দেয়াল বাতাস কিংবা ভূমিকম্পের মতো আনুভূমিক লোডকে প্রতিরোধ করতে বেশ সহায়ক হয়।

water – পানি ; জল
raw water – প্রকৃতিতে পাওয়া যে পানি খাওয়ার উপযোগী করতে শোধনের প্রয়োজন পড়ে।
water treatment – পানিকে খাওয়া বা অন্য কোনো কারখানার কাজে ব্যবহার-উপযোগী করার জন্য শোধনপ্রক্রিয়া।
potable water – মানুষের খাবার উপযোগী পানি ; খাবার পানি। নির্মাণ কাজে সাধারণত  এই পানিই ব্যবহার করা হয়।
water tower : উঁচু জলাধার – মাটি থেকে উঁচুতে স্থাপিত জলাধার যেখানে যান্ত্রিকভাবে পাম্প ক’রে পানি ধারণ করা হয় প্রয়োজনীয় চাপ তৈরীর উদ্দেশ্যে যার ফলে প্রয়োজন অনুসারে সেই পানিকে নিচের স্তরে সুবিধাজনক ভাবে প্রবাহিত করা যায়।
aquifer : ভূ-গর্ভস্থ জলাধার – মাটির নিচের যে বিশেষ স্তরে পানি জমতে পারে। ভূজলবাহ।
reservoir : জলাধার – যে কোনো প্রাকৃতিক বা কৃত্রিম আধার যেখানে পানি জমতে পারে।
surface water – খোলাজল।
underground water – ভূজল।

window – জানালা

workshop
কর্মশালা; কারুঘর (হিমুর লেখাতে প্রথম দেখেছি);

সর্বশেষ হালনাগাদকরণ : ১১.০৬.২০২১